আজব চশমা – নুপুর সাহা

সিরিজঃ চশমাসম্পাদনাঃ শোভন সেনগুপ্ত মিরাকেল ! অবশেষে আজবচশমা এলো হাতে।প্রফেসর তৈরি করেছেনতা, কোনো এক রাতে। মুখোশের ভিতর যেমন-থাকে মুখটি লুকোনো,চশমার ভিতর তেমনিগূঢ় দৃষ্টি ঢোকানো। চশমার পুরু কাঁচে মনেরগোপন ছবি হয় স্পষ্ট।চোখে এঁটে চশমা দেখাযায় ভেতরটা কার কতো নষ্ট ! কে যে কতো হাবিজাবিআঁকছে দিবারাত্র!কার ঘটে কতো বুদ্ধি,বোঝা যায় কে কেমন পাত্র। হিসাবের খাতা খুলে শুধুকষে অঙ্ক, …

চশমা কেন এল? – শক্তিপ্রসাদ ঘোষ

সিরিজঃ চশমাসম্পাদনাঃ শোভন সেনগুপ্ত বঙ্কুবাবুর খেয়াল হলচশমা কেন এলসেটা ভেবে দৌড়ে তিনি গ্রন্থাগারে গেলহাজার বই নামিয়ে নিয়েটেবিল করে ভর্তি বলেন সে সবার কাছে এটাই আমার আর্তি বইয়ের ভেতর লুকিয়ে দিলেন মুখটি গুজে কিছুই নাকি পেলেন না চশমা ছাড়া খুঁজে। আরও পড়ুন >> সুজান মিঠির উপনেত্র

লিমেরিক – সুমনা সেনগুপ্ত

সিরিজঃ সাইকেলসম্পাদনাঃ শোভন সেনগুপ্ত , অমরজিৎ মণ্ডল পাশাপাশি তবু দুরত্ব রেখে চলাপ্রয়োজন মতো দু-চারটি কথা বলাসঙ্গী করে বাই-সাইকেলসরতে বললে ক্রিংক্রিং বেলব্যস্ত ট্র্যাফিক, তপ্ত দহন-বেলা।ক্লান্তপথে ঘর থেকে ঘরে ফেরাসময় বলছে দু-চাকাই হবে সেরা প্যাডেলেতে পাঘামে-ভেজা গাখোলা আকাশে এককোণে ধ্রুবতারা। আরও পড়ুন >> সাইকেলের সুদিন >>

পায়জামা – অর্কোপল মুখোপাধ্যায়

কথায় উঠছে কথায় বসছে হচ্ছে খানিক হাঙ্গামা অনেক কিছুর সাক্ষী আছে কাব্যে সাবেকী পায়জামা ! কোথায় তেমন লেহ্য -পেয় এক কথা তে ভোজ্য না— নতুন কবির কবিতা পড়ায় নামী কবির সহ্য না ! চোখ্ বন্ধ—কান বন্ধ সাঙ্গ পাঙ্গ আবিষ্ট ‘কি’ লিখেছের চেয়ে ঢের ‘কে’ লিখেছে যথেষ্ট।

ঘরে ফেরা – পরিতোষ মণ্ডল

ghore fera paritosh mondal ঘরে ফেরা পরিতোষ মণ্ডল স্টেশনে যেই নেমেছি সবুজ ঘাসের পরে, বলল সবুজ শ্যামলীমা খোকা এলি ঘরে ! এমনি করে ভুলে কী কেউ থাকে নাকি দূরে ? ঘর ফেলে কেউ বিদেশেতে এমনি বেড়ায় ঘুরে ? গাছের শাখা বলল খোকা আয়রে কাছে আয়, কতদিন তুই আসিস না রে আমাদের এই গাঁয়। ফুলের বুকে …