মুক্তগদ্য সাহিত্য

আত্মনির্ভর, প্রেম ও একটি সাইকেল – প্রাণকৃষ্ণ ঘোষ

সিরিজঃ সাইকেল
সম্পাদনাঃ শোভন সেনগুপ্ত

নিজের পা দুটো বাদ দিলে মানুষের সবচাইতে আত্মনির্ভর যানবাহন অবশ্যই বাই সাইকেল। হেলমেট পরলে হেয়ার স্টাইলের দফারফা? চুল নিয়ে প্রেমিকার সঙ্গে চুলোচুলি হবার উপক্রম! পেট্রোল খরচ চালাতে গিয়ে প্রাণ ওষ্ঠাগত? রোজ বাইক চালানোর জন্য মধ্যপ্রদেশের হালকা মেদ অবশেষে তীব্র আকার নিচ্ছে?
– কুছ পরোয়া নেহি । আছে না বাই সাইকেল!

কী বলছেন মশাই, সাইকেলটা অনেকদিন চাপেননি? মানে এখন আর চাপেন না! স্কুটিতে সেল্ফস্টার্ট দিয়ে হুস করে বেরিয়ে যাওয়া শুরু করলেন যবে থেকে তখন থেকেই অভ্যাস খারাপ হয়ে গেছে? – পুরোনো অভ্যাস ফিরিয়ে আনুন দাদা। কী বলছেন কষ্ট হচ্ছে! তা ধরুন বহুদিনের অভ্যাস। কষ্ট তো একটু হবেই! আপনি বরং এক কাজ করুন দাদা। গুটি গুটি পায়ে এগিয়ে যান আপনার ছোট্ট গ্যারেজের দিকে। এক্কেবারে কোণায় দেখুন অবহেলিত অবস্থায় পড়ে রয়েছে আপনার টাট্টু ঘোড়া। হ্যাঁ একটু কষ্ট করে বের করে এনে আপনার দ্বিচক্রযানটাকে একটু পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করুন না! আহারে! আপনি বড়ই অকৃতজ্ঞ মশাই। সেই ছোট্টবেলার নিখাদ প্রেমের দিনগুলো ভুলে গেলেন! বাইকের ব্যাকসীট আসার আগেই তো বাই সাইকেলের ফ্রন্ট সীট এসেছিল জীবনে নাকি! প্রথম চুম্বনটা ভুললেন কী করে দাদা! সেই রোহিত স্যারের ইংরেজি ব্যাচ থেকে বেরিয়ে দেখলেন হালকা বৃষ্টি পড়ছে। মনে পড়ছে দাদা সুনন্দা অনুরোধ করলো খানিকটা এগিয়ে দেওয়ার। খানিকক্ষণের মধ্যেই বৃষ্টির তোড় বেড়ে গেল। বৃষ্টির বড় বড় ফোঁটা সুনন্দা’র ছাতার শিক বেয়ে, ওর পেলব গাল হয়ে টপ করে পড়লো আপনার হাতে। সেদিন যেমন উত্তেজনায় সাইকেলের হ্যান্ডল দৃঢ় করে ধরেছিলেন প্রথম প্রেমিকাকে নিরাপদ গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার জন্য। আজ আরও একবার সাইকেলকে আঁকড়ে ধরুন দাদা, আত্মনির্ভর সফর করার জন্য।

আরও পড়ুন >> পাঠকের নোটবুকঃ যত সব বাগাড়ম্বর

Facebook Comments

You Might Also Like

2 Comments

Leave a Reply