বিনোদন সাক্ষাৎকার

মফঃস্বলের পরিণীতা সায়নী ক্লাইম্যাক্স নিয়ে বললেন এই কথা

গত বছর বইমেলায় পাবলিকেশনের বেস্ট সেলার, নিয়মিত মঞ্চাভিনয়ের পাশাপাশি শ্রুতি নাটকে কণ্ঠদান, এবারের বইমেলায় মফঃস্বলের পরিণীতা সায়নী দাসের প্রকাশিতব্য গল্পগ্রন্থ ‘ক্লাইম্যাক্স’। একান্ত সাক্ষাৎকারে কি বললেন সায়নী…  

১. ২০১৮-তে ভ্যালেন্টাইন সিরিজ লিখে আত্মপ্রকাশ, ২০১৯ বইমেলায় ‘আগন্তুক’ গল্পগ্রন্থ পাবলিকেশনের বেস্ট সেলার, ২০২০-তে ‘ক্লাইম্যাক্স’। বাংলা সাহিত্যে সায়নী দাসের এটা কি সিল্ক রুট ?

– তিনটে তিনরকমের কাজ নিয়ে দিগন্ত পাবলিকেশনের সাথে আমার আত্মপ্রকাশ। দিগন্ত-র কাছে, বিশেষত শোভন দা-র আমি অবশ্যই কৃতজ্ঞ, আমায় বিশ্বাস করার জন্যে, ভরসা রাখার জন্যে। তাছাড়া এটা সিল্ক রুট কিনা জানিনা, তবে এই পথ ধরে আরও এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা অবশ্যই করবো প্রতিনিয়ত।

২. ‘ক্লাইম্যাক্স’-এ আপনি পাবলিশার্স বেস্ট সেলার চয়েস এন্ট্রি, সহলেখক ফিল্ম ডিরেক্টর রাজা চ্যাটার্জী, ‘চক্কোত্তির শ্লোগান’ খ্যাত মৃগাঙ্ক চক্রবর্তী। কেমন শুরু হল নতুন দশক?

– যেদিন প্রথম ফোনে খবরটা পাই, আমার মনে আছে সেই মুহূর্তে আমি রিহার্সালে ছিলাম। ফোনটা কানে নিয়ে কথা বলতে বলতে আমি রীতিমত টেনশনে প্লাস আনন্দে কত পাক হেঁটেছিলাম, তার হিসেব নেই। নতুন দশকের শুরুতে এমন একটা খবরকে শুধু ভালো বলে রেখে দিতে পারবনা, এগুলো এমন অনুভূতি যা ব্যাখ্যা করা যায় না বোধহয় এভাবে।

৩. ‘অহেতুক’, ‘আগন্তুক’, ‘ক্লাইম্যাক্স’, এরপরে কি ?

– এক্ষুণি ঠিক জানিনা এরপর কি বা কবে। তবে ‘আগন্তুক’-এর পরে একটা অন্যরকম কাজ করার ইচ্ছে আছে, সেটা এখনও পর্যন্ত হয়ে ওঠেনি কিছু কারণে। আশা করছি সেই কাজটাই এগিয়ে নিয়ে যাবো। আমার কিছু শিল্পী বন্ধুদেরও চেষ্টা করবো সেই কাজটার মাধ্যমে আপনাদের সামনে নিয়ে আসার। দেখা যাক… (অন আ সিরিয়াস নোট)

৪. মঞ্চাভিনেত্রী, বাচিক শিল্পী, লেখিকা – যেকোনো ভূমিকায় সমানে লড়ে যায়, সবাই যা চায় আপনি ঠিক তাই ?

-(হাসি) না না, তেমন টা নয়। আসলে কোনো মানুষই বোধহয় অন্য কারোর সমস্ত আশা চাওয়া মিটিয়ে দিতে পারেনা। এমনকি আমার তো মনে হয়, আমি প্রতি মুহূর্তে নিজের চাওয়াগুলোকে অতিক্রম করে ক্রমশ নতুন কিছু হয়ে যাচ্ছি। আমি চাই বা ভবিষ্যতেও চাইবো যাতে আমার সমস্ত শিল্প সৃষ্টিকে আমি এমনভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি, যাতে অন্তত কারোর ক্ষতি না হয়। বাকি গ্রহণ কিংবা বর্জন, সেটা আপনাদের উপর।

৫. মৃগাঙ্ক বলেছেন প্রকাশের আগে ‘ক্লাইম্যাক্স’-এর পর্দা উঠানো যাবে না, আপনিও কি ততটাই গোপন রাখবেন ?

– গোপনীয়তা কিন্তু কিছুক্ষেত্রে সৌন্দর্য সত্যিই অনেকটা বাড়িয়ে দেয়। আর ক’টা দিনেরই তো অপেক্ষা, সকলের জন্যেই তো সেজে উঠছে সমস্তটা।

৬. কেমন রেসপন্স আশা করছেন ?

– (একটু থেমে) শব্দটাকে আশা বলবো নাকি ভরসা বা বিশ্বাস, সেটাই ভাবছি। তবে যাই হোক, এটুকুই বলার দিগন্ত-র এই নতুন উদ্যোগকে একবার স্বাগত জানান অন্তত। আমাদের ভুল-ত্রুটি বা ভালো লাগলে সেটাও আমাদের জানান। তাতে আমরা সমৃদ্ধ হব। পাঠক ছাড়া জগতে লেখকের অস্তিত্ব থেকেও থাকবেনা। বিশ্বাস রাখি, আমাদের শ্রম আপনারা ছুঁয়ে দেখবেন অন্তত।

৭. আচ্ছা, একটু অন্যরকম প্রশ্ন করি। প্রেম ছেড়ে হঠাৎ রহস্যে কেন ?

–  আমার একটা বদনাম আছে যে আমি না কি শুধু প্রেম নিয়েই লিখি। আসলে আমার একটা বিশ্বাস আছে যে প্রেম বিষয়টা সবকিছুর সাথেই কোনো না কোনোভাবে রিলেটেড। আমার ক্ষেত্রে রহস্যটা শুধুই রহস্য নয়, বরং বলবো সবটাই প্রায় ‘প্রেম-তুতো’। (যাক্‌, একটু হিন্ট পাওয়া গেল)

৮. আপনার গল্পের ইলাস্ট্রেশন করছেন আরেক চিত্রপরিচালক শিল্পী সুদীপ পাঠক। জানেন তো নিশ্চয়ই!

– অবশ্যই জানি। এটাও অন্যতম প্রাপ্তি।

৯. পাঠকদের উদ্দেশে কোনো মেসেজ দেবেন ?

– (একটু নরম হাসি) প্রথমত ভালোবাসা জানাই সক্কলকে, আমাদের আপন করে নেওয়ার জন্য প্রতি মুহূর্তে। এই ছন্নছাড়া সময়ে এখনো আপনারা হাতে হাত ধরে এগিয়ে আসছেন বলেই অঙ্কুররাও লড়াই চালিয়ে যেতে পারছে, কলম ধরার, শিল্প গড়ার সাহস পাচ্ছে। এই নিস্তব্ধ বন্ধন, বিশ্বাস টিকে থাকুক। এটুকুই… ভালো রাখুন, ভালো থাকুন, শিল্পে থাকুন।

Facebook Comments

You Might Also Like