ইভেন্ট বিনোদন

আলতামিরা আর্টগ্যালারিতে শেরিং গোপাল-এর চিত্রপ্রদর্শনী

গোপাল কুণ্ডু থেকে শেরিং গোপাল – অনেকটা পথ অতিক্রম করে আসা। অনেকগুলো সিঁড়ি ধাপে ধাপে উপরে ওঠা। আর প্রতিভাকে পরিশ্রমের মধ্যে দিয়ে গড়ে তোলার কঠিন কাজটিই করে দেখালেন কাঁচরাপাড়ার চিত্রাঙ্কনশিল্পী শেরিং গোপাল। ২০১৬ সালের শেষ লগ্নে এসে ডিসেম্বরের ৫ থেকে ৭ তারিখ শহর কলকাতার বুকে আলতামিরা আর্ট গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল শেরিং গোপালের প্রথম ‘সোলো এক্সহিবিশন অফ রিসেন্ট পেইন্টিংস এন্ড ফোটোগ্রাফি’। শিল্পী শ্রী সুব্রত দাস, শ্রী পার্থ ভট্টাচার্য, শ্রী বিশ্বজিৎ দাসের উপস্থিতিতে প্রদর্শনীর শুভ সূচনা হয় ৫ ই ডিসেম্বর বিকেল ৩ টায়। উপস্থিত ছিলেন কলকাতা টিভি-র বিশিষ্ট সাংবাদিক শ্রী সঞ্জয় ভদ্র। প্রদর্শনী চলে ৭ ই ডিসেম্বর অব্দি টানা তিন দিন। প্রতিদিন বিকেল ৩ টে থেকে সন্ধ্যে ৮ টা পর্যন্ত শেরিং গোপালের সাম্প্রতিক সকল ক্যামেরাচিত্র ও চিত্রাঙ্কনগুলি প্রদর্শিত করা হয়েছিল।

চিত্রাঙ্কনে প্রতিভার স্বাক্ষর এর আগেও বহুবার রেখেছেন একসময়ে একাডেমী অফ ফাইন আর্টসের ছাত্র শেরিং গোপাল (তখন গোপাল কুণ্ডু)। অনেক প্রদর্শনী থেকেই তাঁর কাছে এসেছে তাঁর চিত্রাঙ্কন প্রদর্শন করার আমন্ত্রণ। বিভিন্ন সময়ে সে ডাকেও সাড়াও দিয়েছেন। একাধিক পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে তাঁর অঙ্কিত প্রচ্ছদ, ইলাস্ট্রেশন।

 

ইলাস্ট্রেশন জগতে সত্যজিৎ রায়ের অনুগামীদের একজন শেরিং গোপালের অন্যতম কৃতিত্ব
‘দিগন্ত পত্রিকা’র বর্তমান ও প্রথম অফিসিয়াল ‘লোগো’র নকশা নির্মাণ।
 

 

আলতামিরা আর্ট গ্যালারিতে প্রদর্শিত চিত্রাঙ্কন ও স্থিরচিত্র সম্বন্ধে স্রষ্টা শিল্পী শেরিং গোপাল জানিয়েছেন, “আমার উৎসাহের মূল হল হিমালয় পার্বত্য অঞ্চল ও তার পাদদেশে, বিশেষত তিব্বতে বসবাসকারী বৌদ্ধ ধর্মের অনুগামী মানুষদের সাধারণ জীবন, লোকাচার ও সংস্কৃতি। আমি বারংবার ছুটে যাই হিমালয়ের পল্লীগ্রামগুলোতে, সেখানের মানুষদের সাথে নিবিড় সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। আমার হৃদয় তাদের সাথে স্পন্দিত হয়, তাদের কৃষ্টি ও পরিবেশ, তাদের সমস্যা এবং প্রত্যাশার সাথে। আর আমার শিল্প মূলত আমার হৃদস্পন্দনেরই প্রতিচ্ছবি”।

প্রদর্শিত চিত্রগুলিতেও নিবিড় শান্তির খোঁজ স্পষ্ট। হিমালয়ের সৌন্দর্য ও নিঃশব্দ ধ্যানমগ্নতার অপরূপ রূপের অনবদ্য চিত্রায়ন দেখতে পাওয়া যায়। পার্বত্য মানুষদের শিশু, নারী ও বৃদ্ধ – সকলের যে মুখছবি শেরিং গোপাল সাদা ক্যানভাসে রং-তুলি-পেন্সিলে শৈল্পিক চিরস্থায়ীত্ব প্রদান করেছেন, তাতে  অনুভূতির ছোঁয়া মনে দাগ রেখে যায়। 

প্রদর্শনীর কিছু মুহূর্ত ও প্রদর্শিত ক্যানভাসের কয়েকটি তুলে ধরলাম >>

                       exhibiton-tshering-gopal-2exhibiton-tshering-gopal-3

                                   exhibiton-tshering-gopal-5exhibiton-tshering-gopal-4

 

Facebook Comments

You Might Also Like